শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪৬ অপরাহ্ন

হাতে হাতে প্রশ্ন, সারা দেশে অসংখ্য গ্রেপ্তার

হাতে হাতে প্রশ্ন, সারা দেশে অসংখ্য গ্রেপ্তার

দেশজুড়ে যেন প্রশ্ন ফাঁসের মহড়া চলছে। পরীক্ষা শুরু হওয়ার ‍আগেই ফাঁস হওয়া প্রশ্ন শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে পৌছে যাচ্ছে। ‍অনেক কেন্দ্রেই পরীক্ষার ঘণ্টাখানেক আগে শিক্ষার্থীরা মোবাইল ফোনে হুমড়ি খেয়ে পড়ে ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র ও উত্তরের জন্য। এসব ঘটনায় অনেক পরীক্ষার্থী গ্রেপ্তার হয়েছে, অনেককে বহিষ্কার করা হয়েছে। চট্টগ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালত বাসভর্তি পরীক্ষার্থী পান যারা হলে ঢোকার আগে মোবাইল ফোনে ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র দেখা ও উত্তর মেলানো নিয়ে ব্যস্ত ছিল। তাদের ধরে নিয়ে আলাদাভাবে পরীক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা করা হয়। সাভারের একজন ছাত্রীর হাতে পাওয়া যায় পদার্থের হুবহু এমসিকিউ অংশের উত্তর। বহিষ্কার করার পর মেয়েটি দোতলা থেকে লাফ দিয়ে গুরুতর আহত হয়ে এখন হাসপাতালে কাতরাচ্ছে।

চট্টগ্রাম নগরীতে মাধ্যমিক পরীক্ষার পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ের ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র ৫৬ জন পরীক্ষার্থীর মোবাইল ফোনে পাওয়া গেছে। এসব পরীক্ষার্থীরা মঙ্গলবার বাসে করে পটিয়া উপজেলার আইডিয়াল স্কুল থেকে নগরীর বাংলাদেশ মহিলা সমিতি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে এসেছিলো। তারা পরীক্ষা শুরু হওয়ার একঘন্টা আগে কেন্দ্রের অদূরে চট্টগ্রাম ওয়াসার পাশে একটি ভাড়া করা বাসে অবস্থান করছিলো।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মুরাদ আলী জানান, পরীক্ষা শুরুর একঘন্টা আগে ঐ বাসে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে প্রথমে কয়েকজন পরীক্ষার্থীর মোবাইলে পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্র পাওয়া যায়। এদের মধ্যে প্রথমে ৫ জন পরীক্ষার্থীকে তাদের মোবাইল পরীক্ষা করে চিহ্নিত করা হয়। পরীক্ষা শুরুর পর মূল প্রশ্নপত্রের সাথে মিলিয়ে দেখা গেছে মোবাইলে প্রাপ্ত প্রশ্নপত্রের সাথে হুবহু মিল রয়েছে। সবার মোবাইল ফোন আটক করে তাদেরকে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ দেয়া হয়। পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর কেন্দ্রে অবস্থানরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মুরাদ আলী বলেন ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র মোবাইলে বহনকারী পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৫৬ জন। এখন তাদের সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গ্রেফতার করা হবে।

তিনি আরো জানান, পরীক্ষা শুরুর একঘন্টা আগে দেখা যায় একটি বাসের ভেতর একদল পরীক্ষার্থী কি যেনো মনোযোগ দিয়ে পড়ছে। ভেতরে গিয়ে দেখা যায় তারা মোবাইল থেকে নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্র মিলিয়ে পড়াশোনা করছে। তাদেরকে প্রশ্ন করা হলে তারা জানায়, এসব প্রশ্ন তারা হোয়াটস এপস নামের একটি ইন্টারনেট এপস থেকে সংগ্রহ করেছে। এব্যাপারে সরকারের নির্দেশনা অনুসারে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান।

ভালো লাগলে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2011 VisionBangla24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com