বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৫৫ পূর্বাহ্ন

ট্রাম্পের সঙ্গে মার্কিন পর্নো তারকার সম্পর্ক জটিল হচ্ছে

ট্রাম্পের সঙ্গে মার্কিন পর্নো তারকার সম্পর্ক জটিল হচ্ছে

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুলতে পারেন দেশটির পর্নো তারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলস। ওই তারকার ম্যানেজার গিনা রদ্রিগেজ বলেছেন, নিজের অভিজ্ঞতার গল্প বলার স্বাধীনতা ড্যানিয়েলসের রয়েছে।

এর আগে ওই সম্পর্ক গোপন রাখতে এই পর্নো তারকাকে এক লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন ট্রাম্পের আইনজীবী মাইকেল ডি কোহেন। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় এক কোটি সাত লাখ ৭৬ হাজার ৯০ টাকা। ট্রাম্পের আইনজীবী ওই অর্থ পরিশোধের ঘটনা স্বীকারের পরই ড্যানিয়েলসের ম্যানেজারের পক্ষ থেকে এমন বক্তব্য এলো। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

২০১৬ সালে স্টর্মি ড্যানিয়েলসকে ওই অর্থ দেওয়া হয়েছিল। তবে ট্রাম্পের আইনজীবীর বক্তব্যের পর গিনা রদ্রিগেজ বলেন, বিষয়টি প্রকাশ না করতে স্টর্মি ড্যানিয়েলস বাধ্য নন। তিনি এ ব্যাপারে খোলামেলা কথা বলতে পারেন।

বুধবার বার্তা সংস্থা এপি-কে গিনা রদ্রিগেজ বলেন, সবকিছু এখন বন্ধ আছে। স্টর্মি তার গল্প বলতে যাচ্ছেন।

ড্যানিয়েলের প্রকৃত নাম স্টেফানি ক্লিফোর্ড। তিনি ২০১১ সালে এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্পের সঙ্গে তার সম্পর্কের কথা বলেছিলেন। তবে টাচ উইকলিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারটি প্রকাশিত হয় ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে। সাক্ষাৎকারে ড্যানিয়েল দাবি করেন, ২০০৬ সালে ট্রাম্পের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ২০০৭ সাল পর্যন্ত স্থায়ী ছিল সে সম্পর্ক।

২০১৮ সালের ১২ জানুয়ারি মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের আইনজীবী মাইকেল কোহেন ড্যানিয়েলকে সম্পর্কের ব্যাপারে ‘চুপ থাকার’ জন্য ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিল। কোহেন প্রথম দিকে ট্রাম্পের সঙ্গে ড্যানিয়েলের সম্পর্কের কথা অস্বীকার করলেও বিষয়টি শেষ পর্যন্ত চেপে রাখতে পারেননি।

এর আগে কোহেন দাবি করেছিলেন, ট্রাম্পের কোনও প্রতিষ্ঠান বা নির্বাচনি প্রচারণা থেকে ক্লিফোর্ডকে (স্টর্মি ড্যানিয়েলসের প্রকৃত নাম) কোনও রকম অর্থ দেওয়া হয়নি। তবে এবার বিষয়টি স্বীকার করেছেন তিনি। সিএনএন’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘ঘটনা সত্যি না হলেও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হওয়ার সুযোগ থাকে। আমি সবসময়ই ট্রাম্পকে রক্ষা করে যাবো।’

এ বছরের ৩০ জানুয়ারি ড্যানিয়েল নিজেই এক বিবৃতিতে জানান ট্রাম্পের সঙ্গে কোনও সম্পর্ক নেই তার। তবে সেখানে তার স্বাক্ষরের সঙ্গে অটোগ্রাফের মিল পাওয়া যায়নি।

এরপর থেকে ড্যানিয়েল আবার নতুন করে জনসমক্ষে আসতে শুরু করেন। ট্রাম্পের স্টেট অব দ্য ইউনিয়নের ভাষণের পর তিনি জিমি ক্যামেলের অনুষ্ঠানেও অংশ নেন।

ভালো লাগলে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2011 VisionBangla24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com